JEE-main
Category – Entrance Exam

উচ্চ মাধ্যমিকের পর ইঞ্জিনীয়ারিং (B Tech/ BE) বা আর্কিটেকচার (B Arch / B Planning) পড়তে চাও? তাহলে তোমাকে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা সম্পর্কে জানতেই হবে।

ভারতে স্নাতক স্তরে ডিগ্রি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য নানান প্রবেশিকা পরীক্ষার আয়োজন করা হয়। এদের মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয় এবং সর্বভারতীয় পরীক্ষা হয় JEE (Main)।

JEE (Main) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে JEE (Advanced) পরীক্ষায় বসা যায়। JEE (Advanced) পরীক্ষার সাহায্যে IIT কলেজগুলিতে ভর্তির সুযোগ পাওয়া যায়।

এই পরীক্ষাটির আয়োজক হল, National Testing Agency বা NTA। NTA এর উপরে এই কার্যভারের দায়িত্ব দিয়েছেন The Department Of Higher Education, Ministry of Education (Government of India)। মোট 13 টি ভাষায় এই পরীক্ষা হয়।

JEE (Main) পরীক্ষা কী?

JEE Main মূলত স্নাতকস্তরের জনপ্রিয় টেকনিক্যাল কোর্সে (BE/ B. Tech, B Arch, B Planning) প্রবেশিকা পরীক্ষা। এর পরীক্ষার রেজাল্টের ভিত্তিতে ভারতের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির সুযোগ পাওয়া যায়

সম্পূর্ণ জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা মোট দুটি ভাগে হয়। একটি জয়েন্ট এন্ট্রান্স মেইন ও অপরটি জয়েন্ট এন্ট্রান্ড অ্যাডভান্সড। জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষার প্রথম ধাপটি হল জয়েন্ট এন্ট্রান্স মেইন। এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া প্রার্থীরা চাইলে জয়েন্ট এন্ট্রান্স অ্যাডভান্সড পরীক্ষাও দিতে পারেন।

একবছরে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে এই পরীক্ষা হতে পারে। যেমন, ফেব্রুয়ারি বা মার্চ কিংবা এপ্রিল অথবা মে, যে কোন সময়েই এই পরীক্ষা হতে পারে। একজন পরীক্ষার্থী চাইলে একাধিকবার এই পরীক্ষায় বসতে পারেন এবং আগের থেকে নিজের র‍্যাঙ্কিং বা ফল আরো উন্নত করতে পারেন। এই র‍্যাঙ্কিং এর ভিত্তিতে কলেজ নির্বাচন করা যায়।

JEE (Main) পরীক্ষার যোগ্যতা (Eligibility)

শিক্ষাগত যোগ্যতা

যে সমস্ত প্রার্থী উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ইতিমধ্যেই বসেছে বা এই পরীক্ষায় পদার্থবিদ্যা, রসায়ন এবং গণিতসহ কম করে হলেও মোট 50% বা তার বেশী নম্বর নিয়ে কৃতকার্য হয়েছে তারাই এই পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে উচ্চমাধ্যমিক বা সমতুল (10+2) এর পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়াটা আবশ্যক।

সুতরাং, উচ্চ মাধ্যমিক সমতুল পরীক্ষায় পদার্থবিদ্যা (Physics), রসায়ন (Chemistry) এবং গণিত (Math) এটি তিনটি বিষয় থাকলে তবেই JEE (Main) পরীক্ষায় বসা যাবে।

বয়সের যোগ্যতা

JEE (Main) পরীক্ষায় বসার জন্য বয়সের কোন নিষেধাজ্ঞা নেই। তবে একটি বিষয় বিশেষ ভাবে লক্ষ্যনীয়। এই পরীক্ষা কেবলমাত্র তারাই দিতে পারবেন যারা সর্বাধিক তিন বছর আগে উচ্চ মাধ্যমিক বা তার সমতুল পরীক্ষায় পাশ করেছেন। একটা উদাহরণের সাহায্যে বিষয়টি বুঝে নেওয়া যাক।

ধরা যাক তুমি 2021 সালে JEE (Main) পরীক্ষায় বসতে চলেছ। এই ক্ষেত্রে তোমাকে 2021, 2020 অথবা 2019 সালের উচ্চমাধ্যমিক উত্তীর্ণ ছাত্র বা ছাত্রী হতে হবে। অর্থাৎ, যদি তুমি 2018 সালে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা পাশ করে থাকো, সেক্ষেত্রে তুমি এই পরীক্ষার জন্য যোগ্য নয়।

JEE (Main) পরীক্ষার বিষয় (Details of Exam)

আগেই বলা হয়েছে যে JEE (Main) পরীক্ষা হল BE / B.Tech, B Arch এবং B Planning পরীক্ষার প্রবেশিকা। তাই এই তিনটি পরীক্ষার জন্য ভিন্ন ভিন্ন প্রশ্নপত্র তৈরি করা হয়।

প্রথম পত্র (B Tech / BE প্রবেশিকার জন্য)

বিষয়Section A
(MCQ)
Section B
(গাণিতিক মান ভিত্তিক প্রশ্ন)
Total Marks
পদার্থবিদ্যা2010 (5টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়)100
রসায়নবিদ্যা2010 (5টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়)100
গণিত2010 (5টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়)100
মোট6030300
সঠিক উত্তরের ক্ষেত্রে4 নম্বর প্রতি প্রশ্ন4 নম্বর প্রতি প্রশ্ন-
ভুল উত্তরের ক্ষেত্রে(-1) প্রতি প্রশ্ন0-

র‍্যাঙ্ক তৈরির ক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীদের প্রাপ্ত নম্বরকে NTA Score-এর সাথে একত্রিত (merge) করে প্রস্তুত করা হয়। যদি কোন পরীক্ষার্থীর নম্বর টাই হয়, সেক্ষেত্রে Section A -এর নম্বরকে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়।

এই পরীক্ষা সম্পূর্ণরূপে কম্পিউটারের (Computer Based Test) সাহায্যে নেওয়া হয়।

দ্বিতীয় পত্র (2A – B Arch প্রবেশিকার জন্য)

বিষয়Section A
Section B
(গাণিতিক মান ভিত্তিক প্রশ্ন)
Total Marks
গণিত (Part 1)20
(MCQ)
10 (5টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়)100
Aptitude Test (Part 2)50-200
Drawing Test (Part 3)2-100
মোট8210400
সঠিক উত্তরের ক্ষেত্রে4 নম্বর প্রতি প্রশ্ন4 নম্বর প্রতি প্রশ্ন-
ভুল উত্তরের ক্ষেত্রে(-1) প্রতি প্রশ্ন0-

Drawing Test -এর ক্ষেত্রে দুটি প্রশ্নে মোট 100 নম্বর থাকে। এই ক্ষেত্রে ভুল হলে কোনরকম নম্বর কাটা হয় না। র‍্যাঙ্ক তৈরির ক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীদের প্রাপ্ত নম্বরকে NTA Score-এর সাথে একত্রিত (merge) করে প্রস্তুত করা হয়। যদি কোন পরীক্ষার্থীর নম্বর টাই হয়, সেক্ষেত্রে গণিতের -এর নম্বরকে গুরুত্ব দেওয়া হয়।

এই পরীক্ষা কম্পিউটারের (Computer Based Test) সাহায্যে নেওয়া হয়। শুধু Drawing Test -এর ক্ষেত্রে আলাদা A4 পাতা দেওয়া হয়।

দ্বিতীয় পত্র (2B – B Planning প্রবেশিকার জন্য)

বিষয়Section A
Section B
(গাণিতিক মান ভিত্তিক প্রশ্ন)
Total Marks
গণিত (Part 1)20
(MCQ)
10 (5টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়)100
Aptitude Test (Part 2)50-200
Planning Based
Objective Type MCQs (Part 3)
25-100
মোট10510400
সঠিক উত্তরের ক্ষেত্রে4 নম্বর প্রতি প্রশ্ন4 নম্বর প্রতি প্রশ্ন-
ভুল উত্তরের ক্ষেত্রে(-1) প্রতি প্রশ্ন0-

র‍্যাঙ্ক তৈরির ক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীদের প্রাপ্ত নম্বরকে NTA Score-এর সাথে একত্রিত (merge) করে প্রস্তুত করা হয়। যদি কোন পরীক্ষার্থীর নম্বর টাই হয়, সেক্ষেত্রে গণিতের -এর নম্বরকে গুরুত্ব দেওয়া হয়।

এই পরীক্ষা কম্পিউটারের (Computer Based Test) সাহায্যে নেওয়া হয়। শুধু Drawing Test -এর ক্ষেত্রে আলাদা A4 পাতা দেওয়া হয়।

পরীক্ষার ভাষা

প্রাথমিক ভাবে ইংরেজি, হিন্দি এবং গুজারাটি ভাষায় এই পরীক্ষা দেওয়া গেলেও, 2021 থেকে বাংলা সহ মোট 13টি ভাষায় এই পরীক্ষা দেওয়া যাচ্ছে।

সময়

সাধারণভাবে 3 ঘণ্টা তবে বিশেষ কিছু ক্ষেত্রে বা শারীরিক ভাবে দুর্বল প্রার্থীদের ক্ষেত্রে 4 ঘণ্টা সময় দেওয়া হয়।

JEE (Main) পরীক্ষার সিলেবাস

উচ্চ মাধ্যমিকের বা যে কোন (10+2) সমতুল পরীক্ষার একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণির পদার্থবিদ্যা, রসায়ন এবং গণিতের সম্পূর্ণ সিলেবাসই হল JEE (Main) পরীক্ষার সিলেবাস।

 

careerbondhu-telegram-channel

বিশেষ দ্রষ্টব্য

  • এই নিবন্ধে ব্যবহৃত তথ্য ইন্টারনেট, সংবাদ পত্র, পত্রিকা, প্রকাশিত রিপোর্ট ইত্যাদি থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। নিবন্ধে ব্যবহৃত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কোর্সের নাম ইত্যাদি শুধুমাত্র শিক্ষামূলক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়েছে। এই ব্যাপারে আরো জানার জন্য এই পাতাটি পড়ে নেবার অনুরোধ রইল → Disclaimer
  • নিবন্ধটি আমরা যথাসম্ভব ত্রুটি মুক্ত রাখার চেষ্টা করেছি, তথ্যে কোনরূপ ত্রুটি চিহ্নিত হলে তা অনিচ্ছাকৃত ত্রুটি হিসাবে গণ্য হবে, চিহ্নিত ত্রুটি এই পাতা থেকে তা আমাদের জানানো যেতে পারে → Report an error