Architecture
Streams – Engineering & Architecture

মানুষ যখন থেকে গোষ্ঠীবদ্ধভাবে জীবন কাটাতে শুরু করেছে, তখন থেকেই তার সৃজনশীলতা প্রকাশ পেয়েছে। প্রাচীনকালে আবিষ্কৃত নিপুণ গৃহ পরিকল্পনা ও গৃহসজ্জা তার প্রমাণ বহন করছে। ভারতবর্ষের বিভিন্ন প্রাচীন মন্দির, মসজিদ, স্মৃতিসৌধ, মঠ, বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহার যেমন – কোনারক, নালন্দা, পুরীর জগন্নাথ মন্দির থেকে জামা মসজিদ, তাজমহল, কুতুব মিনার প্রভৃতি অসংখ্য উৎকৃষ্ট স্থাপত্য আজও আমাদেরকে মুগ্ধ করে। এই সকল স্থাপত্যের এই মুগ্ধকারী রুপের পিছনে রয়েছে অসংখ্য নাম না জানা মেধাবী আর্কিটেক্টদের মস্তিষ্ক।

বর্তমান যুগের দিকে যদি আমরা তাকাই তাহলে আমরা যে সমস্ত শপিং মল, ডিপার্টমেন্টাল ষ্টোর, রেস্টুরেন্ট, পার্লার, অফিস ইত্যাদি দেখব তার সর্বত্রই লক্ষ্য করব অসাধারণ স্থাপত্যবিদ্যা। জীবনকে আরো সুখকর ও আরো নান্দনিক করে তুলতে আর্কিটেক্টদের প্রয়োজনীয়তা ক্রমশ বাড়ছে। তাই এই পেশার ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল।

আর্কিটেকচার কি?

আর্কিটেকচার স্থাপত্যবিদ্যা নামে পরিচিত। ইঞ্জিনিয়ারিং-এর একটি শাখা যা ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে পরিকল্পনা, নকশা, নির্মাণ ও প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে বিশদ আলোচনা করে থাকে। Architecture এবং Civil Engineering এ খানিকটা একই ধরনের কাজ হয়।

[জেনে রাখো – আর্কিটেক্টরা বাড়ি, কারখানা থেকে শুরু করে অ্যাপার্টমেন্ট, জাদুঘর ইত্যাদি স্থাপত্যের নকশা এবং পরিকল্পনা নির্মাণের কাজ করেন, অন্যদিকে সিভিল ইঞ্জিনিয়াররা বিল্ডিং, রাস্তা, বাঁধ, সেতু, জল ব্যবস্থা এবং অন্যান্য বড় কাজের নকশা থেকে সম্পূর্ণ প্রক্রিয়ার তত্ত্বাবধান করেন।]

কিভাবে পড়বো আর্কিটেকচার?

Diploma in Architecture

এটি একটি তিন বছরের ডিপ্লোমা কোর্স। মাধ্যমিক বা এর সমতুল (10) পরীক্ষার পরে রাজ্যভিত্তিক প্রবেশিকা (যেমন JEXPO) পরীক্ষায় ফলাফলের ভিত্তিতে ডিপ্লোমা কোর্স করা যায়। প্রসঙ্গত তিন বছরের ডিপ্লোমা কোর্স শেষ করে lateral entry (যেমন JELET) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে সরাসরি B.Arch এর দ্বিতীয় বর্ষে ভর্তি হওয়া যায়।

B.Arch in Architecture

এটি একটি পাঁচ বছরের ডিগ্রি কোর্স। উচ্চমাধ্যমিক বা এর সমতুল (10+2) পরীক্ষার পরে সর্বভারতীয় প্রবেশিকা পরীক্ষা (JEE Main), NATA, JEE Advanced, HITSEEE, CEED ইত্যাদি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ভারতের বিভিন্ন কলেজে Architecture-এ B.Arch করা যায়।

M.Arch in Architecture

B.Arch করা সম্পূর্ণ হলে দুই বছরের জন্য স্নাতকোত্তর পর্বের পড়াশোনা করা যায়। এক্ষেত্রেও সর্বভারতীয় প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয়।

কোথায় পড়ব? কলেজ কি কি আছে?

ভারতবর্ষের কিছু কলেজ, যেখানে আর্কিটেকচার পড়ানো হয় –

• Indian Institute of Technology (IIT), Kharagpur
• OmDayal Group of Institutions, Howrah
• Indian Institute of Engineering Science and Technology (IIEST), Shibpur
• Jadavpur University, Kolkata
• Rani Rashmoni School of Architecture, Durgapur
• Parul University, Vadodara
• National Institute of Technology (NITC), Calicut
• Centre for Design Excellence (CODE VGU), Jaipur
• School of Planning and Architecture (SPA), New Delhi

আর্কিটেকচার কলেজের কোর্স ফি কত?

Diploma কোর্স ফি – সরকারী প্রতিষ্ঠানে ডিপ্লোমা কোর্স করলে সেক্ষেত্রে কলেজের কোর্স ফী সাধারণত 10 হাজার থেকে 3 লাখ অবধি হতে পারে।

বেসরকারী কলেজে ডিপ্লোমা কোর্স করলে সেক্ষেত্রে কলেজের কোর্স ফি সাধারণত 2 লাখ থেকে 5 লাখ অবধি বা আরো বেশী হতে পারে।

B.Arch কোর্স ফি – সাধারণভাবে সরকারী প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে কলেজের কোর্স ফী 3 লাখ থেকে 10 লাখ অবধি হতে পারে।

বেসরকারী কলেজের ক্ষেত্রে কোর্স ফি 8 লাখ থেকে 20 লাখ অবধি বা আরো বেশী হতে পারে।

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে এই কোর্স ফী আলাদা আলাদা হয়।

আর্কিটেকচারে কি কি বিষয় পড়তে হয়?

আর্কিটেকচারে যে যে বিষয়ে পড়ানো হয় –

• Visual Arts and Basic Design
• Architectural Design
• Building Construction
• Theory of Structures
• Theory of Structure & Design
• Computer Applications
• History of Architecture ইত্যাদি।

এগুলি ছাড়াও রয়েছে, Sociology and Culture, Model making and Workshop, Environmental Studies, Water, Waste and Sanitation, Electrification, Lighting & Acoustics, Site Planning and Landscape Studies ইত্যাদি।

Architecture কোর্সের ভবিষ্যৎ কেমন?

বিল্ডিং, অফিস, অ্যাপার্টমেন্ট, বাড়ি, শপিং মল, হসপিটাল প্রভৃতির সৌন্দর্যায়নে আর্কিটেক্ট (Architect)-দের ভূমিকা প্রধান। বিভিন্ন নকশা (design) বা প্ল্যানের মাধ্যমে বিল্ডিংকে আরও সুন্দর, পরিবেশ বান্ধব ও আরামদায়ক করে তুলতে আর্কিটেক্টরা অদ্বিতীয়। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে মানুষ তার প্রয়োজনকে সৌন্দর্যের মোড়কে বিশ্বের কাছে তুলে ধরছে। তাই এই ধরনের পেশার গুরুত্ব ধীরে ধীরে বাড়ছে।

B.Arch করার পর একজন Architect নিজের ফার্ম খুলেও কাজ করতে পারেন।

কি ধরনের চাকরী পাওয়া যায়?

আর্কিটেক্টরা মূলত যে ধরনের কাজে নিযুক্ত হতে পারেন সেগুলি হল,

• Design Architect
• Architectural Engineer
• Interior Designer
• Architecture Draughtsman
• Architectural Historian/Journalist
• Set Design
• Landscape Architect

কিছু বিখ্যাত প্রাইভেট সংস্থা, যারা আর্কিটেক্ট নিয়োগ করেন –

• Chitra Vishwanath Architects
• L&T
• DLF
• Jindals
• IMAXE
• Manchanda Associates
• Architect Consultants
• VSA Space Design (P) Ltd.
• Edifice Architects Pvt.Ltd.
• Vasthu architects
• Malwadkar and Malwadkar
• Jones Lang LaSalle Meghraj

Architecture Industry

আর্কিটেকচার ইন্ডাস্ট্রিতে আর্কিটেক্টরা design এবং plan করে বিভিন্ন residential যেমন – বাড়ি, অ্যাপার্টমেন্ট, হোটেল ইত্যাদি ও nonresidential যেমন – স্কুল, কলেজ, হসপিটাল ইত্যাদি।

বিশ্বের কিছু অসাধারণ স্থাপত্য –

• Burj Khalifa
• Victoria
• Eiffel Tower
• Taj Mahal
• Lotus Temple

আর্কিটেকচার পড়ে কি সরকারি চাকরি পাওয়া যায়?

অবশ্যই সরকারী চাকরি পাওয়া যায়। B. Arch করা থাকলে ভবিষ্যতে সরকারী চাকরির সুযোগও যথেষ্ট ভালো। সরকারের বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টে কর্মী নিয়োগ হয় –

• Central Public Work Department (PWD)
• Department of Railways
• Bharat Heavy Electronics Limited (BHEL)
• Ministry of Defence

পর্ব সমাপ্ত!

careerbondhu-telegram-channel

বিশেষ দ্রষ্টব্য

  • এই নিবন্ধে ব্যবহৃত তথ্য ইন্টারনেট, সংবাদ পত্র, পত্রিকা, প্রকাশিত রিপোর্ট ইত্যাদি থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। নিবন্ধে ব্যবহৃত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কোর্সের নাম ইত্যাদি শুধুমাত্র শিক্ষামূলক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়েছে। এই ব্যাপারে আরো জানার জন্য এই পাতাটি পড়ে নেবার অনুরোধ রইল → Disclaimer
  • নিবন্ধটি আমরা যথাসম্ভব ত্রুটি মুক্ত রাখার চেষ্টা করেছি, তথ্যে কোনরূপ ত্রুটি চিহ্নিত হলে তা অনিচ্ছাকৃত ত্রুটি হিসাবে গণ্য হবে, চিহ্নিত ত্রুটি এই পাতা থেকে তা আমাদের জানানো যেতে পারে → Report an error
error: Content is protected !!